মাস্ক পড়ে নামাজ আদায় করলে নামাজ হবেনা

 

মাস্ক পড়ে নামাজ আদায়ের ব্যাপারে ফতোয়া, মাসয়ালা যে যাই দিক না কেন আমাদেরকে পবিত্র কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ উনাদের দিকে ফিরে যেতে হবে। যদি কোন নামধারী মুফতি, মাওলানা, আলেম কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ উনাদের স্পষ্ট বিরোধী ফতোয়া দেয় তাহলে বুঝতে হবে সে নিশ্চিত জালিম এবং মুরতাদ।

পবিত্র কুরআন শরীফ, হাদীছ শরীফ থেকে জবাব।   

১) হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি সিজদাহ করার ব্যাপারে সাতটি অঙ্গের প্রতি নির্দেশনা দিয়েছেন। তম্মেধ্যে নাক ও কপাল রয়েছে। অর্থাৎ শর্ত হলো, নামাজের সিজদায় নাক ও কপাল যমিনে ঠেকাতে হবে। নচেৎ নামাজ হবে না।

দলিলঃ হযরর আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনি বর্ণনা করেন। হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনি ইরশাদ মুবারক করেছেন, আমি সাতটি অঙ্গের দ্বারা সিজদা করার জন্য নির্দেশিত হয়েছি। কপাল দ্বারা এবং তিনি হাত দিয়ে নাকের প্রতি ইশারা করে এর অন্তর্ভুক্ত করেন, আর দুই হাত, দুই হাঁটু এবং দুই পায়ের আঙুলগুলো দ্বারা। আমরা যেন চুল ও কাপড় গুটিয়ে না নিই। (সহীহ বুখারী ৮১২)

অপর একটি হাদীছ শরীফে আরো স্পষ্ট বর্ণনা এসেছে।

হযরত আবু সাঈদ খুদরি রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু উনার থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, মহান আল্লাহ পাক উনার রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি আর্দ্র মাটিতে সিজদা করলেন। এমনকি আমি উনার কপালে ও নাকে কাঁদামাটির চিহ্ন দেখেছি। (সহীহ বুখারী ২০৩৬)

২) শর্ত হলো যদি কেউ জায়নামাজে নামাজ আদায় করে তবে অবশ্যই নাক ও কপাল জায়নামাজে ঠেকাতে হবে। নচেৎ নামাজ আদায় হবে না।

দলিলঃ হযরত আনাস ইবনে মালেক রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন, প্রচণ্ড গরমের মধ্যে আমরা আল্লাহ পাক উনার রসূল ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সঙ্গে নামাজ আদায় করতাম। আমাদের কেউ মাটিতে তার চেহারা (কপাল) স্থির রাখতে সক্ষম না হলে সে তার কাপড় বিছিয়ে তার ওপর সিজদা করতো। (সহীহ বুখারী ১২০৮)

পবিত্র এই হাদীছ শরীফ জায়নামাজে নামাজ আদায় করার নির্দেশনা দেয়। কেউ যদি যমিনের উপর জায়নামাজ বিছিয়ে নামাজ আদায় করে তাহলে তার জায়নামাজ যমিন হিসেবে বিবেচিত হবে। সেক্ষেত্রে যমিনের পরিবর্তে জায়নামাজে নাক ও কপাল ঠেকাতে হবে। কিন্তু মুখমণ্ডল ঢাকা যাবে না।

৩) যমিনে হোক, জায়নামাজে হোক নাক ও কপাল যমিন অথবা জায়নামাজে ঠেকিয়ে সিজদাহ করতে হবে। কিন্তু মাস্ক পড়ে নামাজ আদায় করলে সিজদাহতে নাক কোনভাবেই জায়নামাজে ঠেকছে না। তাই মাস্ক পড়ে নামাজ আদায় করলে নামাজ হবে না।

যেমনঃ রসূলাল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি যে কোন ব্যক্তিকে সালাতরত অবস্থায় তার মুখমণ্ডল ঢাকতে নিষেধ করেছেন। (আবূ দাঊদ ৬৪৩, ৬৫০, সুনানে ইবনে মাজাহ ৯৬৬)

সুতরাং এই ব্যাপারে আর কোন ওজর বা অজুহাত চলবে না। মাস্ক পড়ে নামাজ আদায় করলে নামাজ হবে না, হবে না হবে না। এটাই সম্মানিত শরীয়ত উনার চূড়ান্ত ফায়সালা।


শেয়ার করুন

লেখকঃ

ইহাই নতুন পোষ্ট
পরবর্তী পোষ্ট